আজ || মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২
শিরোনাম :
  গোপালপুরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে হামলা, ভাংচুর ও লুটের অভিযোগ       গোপালপুরে নিষিদ্ধ জালে আগুন       মাদার তেরেসা এ্যাওয়ার্ড পেলেন কলেজ শিক্ষক নূর নবী       ৮টা-৩টা অফিস; গোপালপুরে অধিকাংশ সরকারি অফিস ছিল তালাবদ্ধ       গোপালপুর থানা প্রাঙ্গণে লাশ রাখার ঘর উদ্বোধন       গোপালপুর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের পতাকাদন্ড আম পাড়ার কোটা       অবশেষে উচ্ছেদ করা হলো গোপালপুরের সেই ৪টি অবৈধ সেচপাম্প       রাজা যায়, রাজ্যের মানচিত্রও বদলায়, টিকে থাকে মোসাহেব, চাটুকার ও চামচা       জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি গোপালপুর থানার মোশারফ হোসেন       বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে গোপালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন    
 


গোপালপুরে মাতৃত্বকালীন ভাতা নিয়ে প্রতারণা করায় কারাদণ্ড

গোপালপুর বার্তা ডেক্স :
গোপালপুরে সরকারি আদেশ অমান্য করে মাতৃত্বকালীন ভাতা নিয়ে প্রতারণা করার অপরাধে মো. জনি (২৪) নামের এক যুবককে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রবিবার বিকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. পারভেজ মল্লিক ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে এ দণ্ডাদেশ দেন।

প্রতারক জনি হেমনগর শশিমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মঞ্জুরুল হোসেনের ছেলে এবং হেমনগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সুবন আহম্মেদ রনির ছোট ভাই।

জানা যায়, হেমনগর ইউনিয়ন থেকে তিন ভুক্তভোগী মহিলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. পারভেজ মল্লিক ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তাপসী শীলের জাল স্বাক্ষর করা মাতৃত্বকালীন ভাতা পরিশোধ কার্ড নিয়ে টাকার জন্য মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ে যান। কর্তৃপক্ষ অফিস রেজিস্ট্রারে কার্ডগুলো তালিকাভুক্ত না পেয়ে ইউএনওকে অবহিত করেন।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, হেমনগর ইউনিয়নের ২৫ জন গর্ভবতী মহিলার কাছ থেকে মাতৃত্বকালীর ভাতা কার্ড করে দেয়ার কথা বলে ৬ হাজার টাকা করে ঘুষ নেয় প্রতারক জনি। বৈধভাবে কার্ড করে দিতে না পেরে স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ভাতা পরিশোধ কার্ড তাদের হাতে ধরিয়ে দেয় সে। পরে, সরেজমিনে ওই ইউনিয়নে গিয়ে জনিকে আটক করে এ দণ্ডাদেশ  দেয়া হয়।

মন্তব্য করুন -


Top
error: Content is protected !!