গোপালপুর আজ , শুক্রবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৯ ইং |


গোপালপুরে পুলিশের নির্যাতনে ১ ব্যক্তির মৃত্যুর অভিযোগে তুলকালাম !

কে এম মিঠু, গোপালপুর :

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে পুলিশের নির্যাতনে আব্দুল হাকিম (৫০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যুর অভিযোগে উঠেছে। এ ঘটনায় চারজনকে আটক, টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল, হাসপাতাল ঘেরাও, পুলিশের সাতে ধাওয়া পাল্টাদাওয়া, এসআই, এএসআইসহ সাত পুলিশ সদস্যকে সাময়িকভাবে প্রত্যাহার করা হয়।

শুক্রবার বিকেলে গোপালপুর উপজেলার ঝাওয়াইলে এ ঘটনা ঘটে। তবে পুলিশ নির্যাতনের বিষয়টি অস্বীকার করেছে।

স্থানীয়রা জানায়, ঝাওয়াইল টেকনিক্যাল কলেজ মাঠে বিকেলে আব্দুল হাকিমসহ কয়েকজনে তাস খেলছিলেন। গোপন সূত্রে গোপালপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তাহেরের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সাদা পোশাকে মাইক্রোবাস নিয়ে ওই মাঠে অভিযান চালায়। এ সময় আব্দুল হাকিম, সুরুজ্জামান, হারাধন চন্দ্র, গৌরাঙ্গ চন্দ্র ও মো. রিপনকে আটক করে বেদম মারধর করে। আটককৃতদের মধ্যে আব্দুল হাকিম অসুস্থ হয়ে পড়লে পুলিশ তাকে ছেড়ে দিয়ে বাকী চারজনকে থানায় নিয়ে আসে। পরে আব্দুল হাকিমকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাকিমের স্বজনদের অভিযোগ, পুলিশের নির্যাতনে হাকিমের মৃত্যু হয়েছে। তারা দায়ী পুলিশের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান। ঝাইওয়াইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, একজন সুস্থ মানুষকে আটক করার পর তার মৃত্যু হলো। বিষয়টি রহস্যজনক। এর সুষ্ঠু তদন্ত হলে মৃত্যুর রহস্য উদ্ঘাটিত হবে।

এদিকে হাকিমের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে ঝাওয়াইল গ্রামের শত শত মানুষ হাসপাতালে ছুটে আসেন। এ সময় তারা বিক্ষোভ মিছিল করে এসআই তাহেরসহ এ ঘটনায় জড়িত পুলিশ সদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

পরে রাত দশটার দিকে স্থানীয় সাংসদ ছোট মনির এবং জেলা পুলিশ সুপার গোপালপুর হাসপাতালে পৌঁছে বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ ও দাবি পূরণে আশ্বস্ত করে ঘটনার উত্তপ্ত পরিস্থিতি শান্ত করেন।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুন বলেন, জুয়ার আসর থেকে পুলিশ কয়েকজনকে আটক করে। হাকিম দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হন। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

Comments

comments


Top