গোপালপুর আজ , শুক্রবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৯ ইং |


ভারতে পাচারের জন্য গোপালপুরের আয়শাকে উদ্ধার; ৩ নারী পাচারকারী আটক

ডেক্স নিউজ, গোপালপুর বার্তা :

ভারতে পাচারের জন্য টাঙ্গাইলের গোপালপুরের আয়েশা আক্তার (১৭) নামের এক কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় পাচারকারী চক্রের তিনজনকে গ্রেফতার করেছে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ।

আয়েশা টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার ধোপাকান্দি গ্রামের আক্তারুজ্জামানের মেয়ে।

এ ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছেন, কোলকাতার ঘোষপুকুর এলাকার পরেশ চন্দ্র দাশের মেয়ে জয়িতা মান্না ওরফে পিউ ওরফে খাদিজা, কোলকাতা বিরাটি হাউজিং এস্টেট এলাকার মহানন্দা বিশ্বাসের মেয়ে সানন্দা বিশ্বাস ও ঈশ্বরদীর স্কুলপাড়ার মৃত সুনীল দাশের ছেলে বিশ্বজিৎ দাশ।

টাঙ্গাইলের গোপালপুর থানায় দায়ের করা মামলায় পুলিশ বুধবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে ঈশ্বরদী বাস টার্মিনাল হতে ওই কিশোরী উদ্ধার ও পাচারকারীদের গ্রেফতার করে।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, চক্রটি সদ্য এসএসসি পাশ করা আয়েশাকে ফ্যাশন ডিজাইনার বানানোর প্রলোভন দিয়ে ভারতে পাচারের জন্য টাঙ্গাইল থেকে ঈশ্বরদীতে নিয়ে আসে। মঙ্গলবার রাতে তারা প্রথমে শহরের স্কুলপাড়ার বিশ্বজিৎ দাশের বাড়িতে উঠে।

বুধবার সারাদিন সীমান্ত এলাকা লালপুর, গোপালপুরসহ বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করে। ভারতীয় নাগরিক জয়িতা ও সানন্দার পাসপোর্ট-ভিসা থাকলেও আয়েশার পাসপোর্ট-ভিসা না থাকায় চোরাই পথে তাকে ভারতে পাচারের প্রচেষ্টা করা হচ্ছিল বলে তিনি ধারণা করছেন। কিন্তু পাচারের সুযোগ করতে না পারায় তারা আয়েশাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য বাসের টিকেট কিনে টার্মিনালে অপেক্ষা করছিল।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিশ্বজিতের সঙ্গে এই চক্রের যোগাযোগ ও অবস্থান নিশ্চিত করে ঈশ্বরদী থানাকে অবহিত করেন। পরে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ বিকেল ৩টার দিকে প্রথমে বিশ্বজিতকে আটক করে। পরে বাস টার্মিনালে অবস্থানরত আয়েশাকে উদ্ধার এবং দুইজনকে আটক করা হয়।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, বৃহস্পতিবার সকালে টাঙ্গাইলের গোপালপুর থানায় রেকর্ড হওয়া মামলায় ওই থানার পুলিশ গ্রেফতার হওয়া তিন আসামি ও উদ্ধার হওয়া কিশোরীকে টাঙ্গাইল নিয়ে গেছেন।

Comments

comments


Top